আমার চেতনার রঙে রাঙানো এই খেলা ঘরে:

~0~0~! আপনাকে স্বাগতম !~0~0~

***************************************************



Tuesday, 21 April 2009

Dusho Bochorer Bangla Probondo Sahityo Boite Musolmander Upekkha Kora Nie Asru Kumarer Khed.

দুশ বছরের বাংলা প্রবন্ধসাহিত্য  বইতে মুসলমানদের উপেক্ষা করা নিয়ে অশ্রু কুমারের খেদ ।

 

 দুশ বছরের বাংলা প্রবন্ধসাহিত্য , প্রথম খণ্ড  নামে সম্প্রতি সাহিত্য একাদেমি থেকে একটি বই বেরিয়েছে ১৬০ টাকা দাম সম্পাদনা করেছেন অলোক রায় , পবিত্র সরকার ও অভ্র ঘোষ 'দেশ' কাগজের ১৭ নভেম্বর,২০০৮ সংখ্যাতে অশ্রু কুমার সিকদার এর এক সমালোচনা লিখেছেন শ্রী সিকদার বাংলা সাহিত্যের সুপরিচিত  ঐতিহাসিক, সমালোচক ও তাত্বিক বইটির সম্পাদকত্রয় এবং সমালোচক সব্বাই 'বামপন্থী' বলে পরিচিতএই সমালোচনাতে শ্রী সিকদার এক জায়গায় মূল্যবান এক মন্তব্য করেছেনসাধারণত বাংলা সাহিত্যের সমালোচকেরা এমন অপ্রিয় মন্তব্য করবার থেকে আত্মরক্ষা করে থাকেন তিনি লিখেছেন ঃ " . . .ইসলাম ধর্মাবলম্বী বাঙালি লেখকদের এই সংকলনে  কার্যত অনুপস্থিতি আমাকে  পীড়িত করেছে একমাত্র মীর মশারফ হোসেনকে পেলাম আমরা, সেক্ষেত্রে পেলাম তাঁর এপিক-উপন্যাস 'বিষাদসিন্ধু'-র একটি অংশকে প্রবন্ধ হিসেবেএখনও যদি যাঁরা 'অপর' বলে উপেক্ষিত, তাঁদের চিন্তা চেতনার নজির তুলে ধরা না হয়, তবে আর কবে হবে ? বাংলা গদ্যসাহিত্যের প্রচলিত ইতিহাসের পরিচিত   গণ্ডির বাইরে যাওয়ার উদ্যোগ নেবেন, তেমনই প্রত্যাশা ছিল তিন প্রগতিশীল ভাবুক সম্পাদকের কাছে।  ইংরেজ শাসনের ফলে পাশ্চাত্য সভ্যতার সাংস্রবে এসে বাংলায় যে-উনিশ শতকীয় নবজাগরণ ঘটেছিল তার সুফল বাঙালি হিন্দুরা গ্রহণ  করেছিল । নানা  ঐতিহাসিক কারণে বাঙালি  মুসলমান সমাজ তার সুফল সুফল থেকে নিজেদের বঞ্চিত করেছিল । সেই অসম বিকাশের মারাত্মক পরিণাম আজও প্রকট । ঊনবিংশ শতাব্দীর বাংলা সাহিত্যে বাঙালি মুসলমানের কণ্ঠস্বর আমরা বিলম্বে শুনেছি । কিন্তু যাঁরা নানা প্রতিবন্ধকতা কাটিয়ে  বাংলা ভাষায় নিজেদের চিন্তাভাবনা প্রকাশ করেছিলেন তাঁদের কথা পাঠকের সামনে তুলে ধরলে ভালো হত।যেমন রেয়াজুদ্দীন আহমদ মাশহাদির মতো লেখকদের কথা ।সুধাকর, মিহির, মিহির ও সুধাকর, কোহিনূর, নবনূর ইত্যাদি পত্রিকার পৃষ্ঠা ওল্টালে  আরও দুচারজন চিন্তাশীল লেখকের দেখা মিলত । অন্যদিকে আমি সম্পাদকের প্রতি গভীরভাবে  কৃতজ্ঞ ব্রহ্মবান্ধব উপাধ্যায়ের দুটি প্রবন্ধকে সংকলনে  জায়গা দেওয়ায়।---

অশ্রু কুমার শিকদারকে বছর তিন আগে রবীন্দ্র ভারতী বিস্ববিদ্যালয়ে বিশ শতকের বাংলা কথা সহিত্য বিষয়ে পুণর্বিন্যাস পাঠক্রমে গিয়ে আমার দেখার সৌভাগ্য হয়েছিল। তিনি এসছিলেন পাঠক্রমের উদ্বোধন করবেন বলে। তখনই তিনি বেশ বৃদ্ধ । বোধ হয় জীবন সায়াহ্নে পৌঁছে তাঁর এই মৌলিক বোধদয় হয়েছে। নইলে তাঁর লেখা বাংলা সহিত্যের ইতিহাস বইতেও সাম্প্রদায়িক সুর আমাকে এতোদিন ব্যথিত  রেখেছিল । সাহিত্যের সাম্প্রদায়িকতাতে বামপন্থীরাও কম যায় না ।

 

Related Posts Plugin for WordPress, Blogger...

Google+ Badge

^ Back to Top--'উপরে ফিরে আসুন'