আমার চেতনার রঙে রাঙানো এই খেলা ঘরে:

~0~0~! আপনাকে স্বাগতম !~0~0~

***************************************************



Monday, 8 March 2010

আমার কবিতা ০১

       
 কবিতাঃ আমার কৈশোর যৌবনের ভালোবাসা
           সেই ছেলেবেলা স্কুলে যখন পড়তাম , সত্তরের শেষের দিকে কবিতা লিখতে শুরু করি। শুধু কি কবিতা? গল্প, নাটক, উপন্যাস, কি না লিখেছি। এখন সবই বাজে কাগজের বাক্সে আছে। তবু ১৯৮৫র শেষের দিকে থেকে লেখা কিছু কবিতা বাছাই করে রেখেছিলাম। ভেবেছিলাম এ কাজটা বাদ যাবে না। কিন্তু দশ বছর পর ১৯৯৫ থেকে সে ভালোবাসাও টিকিয়ে রাখতে পারিনি। সে অনেক কথা , পরে কখনো বলবোখন।
         কিন্তু এই দশ বছরে লেখা কবিতা এখনো যত্নে রেখেছি। তার সব ক'টা যে আমার এখন ভালো লাগে, তা নয়। কিন্তু অনেক গুলো আছে, অন্যের ভালো না লাগলেও আমার লাগে । যেমন অনামিকা সিরিজের সেই 'প্রাকৃত পৈঙ্গলে'র অনুবাদ " প্রিয়তম দূর দেশে /দিগন্ত পার। ওড়না ওড়ালো এসে।মেঘ বরষার/" তেমনি আরো কিছু। সেগুলো এতোদিন খাতাতে ছিল। এখন এখানে তুলে রাখব ভাবছি ক্রমান্বয়ে।




                                           ভূপালের পর

                                         বড় কষ্টে বাঁচার লড়াই করেও ,
                                         সবুজ সবুজ গাছগুলো মরে কাঠ।
                                         বড় কষ্টে বাঁচার লড়াই করেও
                                         নির্বোধ পশুগুলো মরে লাশ।

                                         মরে লাশ বাস্তিলে বন্দি মানুষ !
                                                  (১২-০৫-৮৫)



                                           ঘুর্ণি ঝড়
                                 (২৫ মে,৮৫ বাংলাদেশের অভূতপূর্ব ঘূর্ণিঝড়ের পরিপ্রেক্ষিতে)
                                        চাঁদের গহনা খুলে দিয়ে এসে
                                        মেঘলা রাতের ঝিঁঝিঁ 
                                        গুনে গুনে যায় পল।
                                        শোঁ শোঁ ছল শব্দ সাগরে উত্তরঙ্গ জল।

                                        জবাব দিতে ঘুরে এলো না দুর্বিনীত ঝড়

                                        কবর খুঁড়ে দেখা মেলে শুধু...
                                        ছিন্ন শেকড়।
                                              ( ২৮-৫-৮৫)

                            


                                     এখন

                                         ( কবি বীরেন্দ্র চট্টপাধ্যায়ের মৃত্যুতে)
 
                                      আমরা  এখন কী করব?
                                      কিছুই করি না করি
                                      তাঁকে আর অন্নদেবতাকে সম্মাণ জানাবো।
                                      আমরা এখন কী করব?
                                     কিছুই করি না করি ---- জননী জন্মভূমি,
                                     চোখের দুপাতা জড়ো হয়ে এসছে তাঁর
                                                    ছিন্ন আঁচলে তুমি মুছে দাও জল,
                                                    তাঁর ক্লান্ত শরীরটাকে শুইয়ে দাও
                                                    অতীতের সুরম্য বিছানায়।
                                    যতদিন তোমার এ শীর্ণ শরীরে আছে
                                                   ছিন্ন পোষাক
                                                   আর
                                                   জলসা ঘরে বেঁচে আছে কতিপয় অসভ্য লোক
                                                   আমরা ভুলে থাকব না
                                                   তাঁকে
                                                   পূজোর ছলে।

                                                   আমরা ভুলে থাকব না
                                                   তাঁকে
                                                   পূজোর ছলে।
                 
                                                     ( ১৪-০৭-৮৫)

                                                 মদ

                                           তোরা আমার তেপান্তরের কাজলা দিঘির জল,
                                 দুচোখ থেকে নিঙড়ে নিয়ে
                                 পান করেছিস মদ।

                                                    ( ১৮-৭-৮৫)
Related Posts Plugin for WordPress, Blogger...

Google+ Badge

^ Back to Top--'উপরে ফিরে আসুন'